vivo y22s সাথে 6GB র‍্যাম ও 50MP রিয়েল ক্যামেরা বিস্তারিত তথ্য জানুন

এখনো বর্তমান বাজারে 18 হাজার টাকার উপরে স্মার্টফোন ফোন নিয়ে বেশ আলোচনায় থাকে। ভিভো কোম্পানি এবার বাংলাদেশের বাজারে ভিভো ওয়াই২২এস আরেকটি নতুন ডিভাইস বাজারে লঞ্চ করল।

আপনারা vivo y22s ফোন সম্পর্কে সকল তথ্য জানতে পারবেন ফোনটির ভালো-মন্দ সম্পর্কে, তাহলে জেনে নেয়া যাক আজকে vivo y22s সকল খুঁটিনাটি বিস্তারিত সকল তথ্য

ভিভো Y22s

ভিভো y22s ডিজাইন ও ডিসপ্লে

vivo y22s ডিভাইসটির ডিজাইন সবার কাছে ভালো লাগবে বলে ধারণা করছে ভিভো কোম্পানি। ভিভো ওয়াই ২২এস মোবাইলের ব্যাকে সুন্দর ভাবে রয়েছে  ক্যামেরা কাটআউট, যাতে মোবাইলের ক্যামেরা স্থান পেয়েছে।

vivo y22s ফোনের ফ্রন্টে রয়েছে নচ ডিসপ্লে যা মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীদের কারো কারো সবথেকে বেশি ভালো লাগবে, আবার অনেকের কাছে ভিভো ওয়াই২২এস ভালো নাও লাগতে পারে।

6.55ইঞ্চি এইচডি+ আইপিএস এলসিডি প্যানেল ব্যবহার করেছে vivo y22s ফোনটিতে।

ভিভো ওয়াই ২২এস এই ফোনের দামে এই ডিসপ্লে কাগজে কলমে ব্যবহারকারীদের অনেক হতাশ করবে। ভিভো ওয়াই২২এস ফোনের ওজন ১৯২ গ্রাম, vivo y22s ফোনটির ডিসপ্লেতে যদি বলি তাহলে বলতে গেলে অনেক কমতি রয়েছে।

বর্তমান বাজারে ভিভো ওয়াই ২২এস ফোনের চেয়ে বাজারে আরো অন্যান্য ব্র‍্যান্ড হাই রিফ্রেশ রেটের, ফুল এইচডি প্লাস এমোলেড ডিসপ্লে অফার করছে ।

ভিভো ওয়াই২২এস ক্যামেরা

যেহেতু অনেকের কাছে ভিভো ফোনের মূল আকর্ষণ হচ্ছে ফোনের ক্যামেরা, তাই এখন বলবো এই ফোনের ক্যামেরা নিয়ে। ভিভো ওয়াই ২২এস ফোনটিতে রয়েছে 50 মেগাপিক্সেল ডুয়াল রিয়াল ক্যামেরা সেটাপ।

vivo y22s ফোনটিতে ৫০মেগাপিক্সেল প্রাইমারি সেন্সর এর আর একটি পাশাপাশি ২মেগাপিক্সেল ম্যাক্রো ক্যামেরা। আপনি যদি ভালো আলোতে vivo y22s ফোনটি দিয়ে কোন ছবি তুলেন তাহলে সেটা ভালো ছবি উঠবে সেটাই স্বাভাবিক ।

তবে বাজারে আরো অন্য সকল বাজেট ফোনের মত এখানেও দুর্বল পারফরম্যান্স দেখতে পাবেন যেখানে লো লাইট কন্ডিশনে। vivo y22s ফোনটি দিয়ে ভিডিও রেকর্ড করা যাবে সর্বোচ্চ ১০৮০পি ৩০এফপিএস পর্যন্ত।

vivo y22s ফোনের ফ্রন্টে পেয়ে যাবেন ৮মেগাপিক্সেলের সেল্ফি ক্যামেরা। ভিভোর আরো অন্য সকল ফোনের মতই সেল্ফি ক্যামেরায় এই ফোনের ক্যামেরাও বর্তমান সময়ে সোশ্যাল মিডিয়াতে রেডি ছবি তুলে যা ভালো লাগবে কিনা তা সম্পূর্ণ একজন ব্যক্তির নিজস্ব পছন্দের উপর নির্ভর করে থাকে।

ভিভো ওয়াই২২এস পারফরম্যান্স

ভিভো ওয়াই২২এস ফোনটিতে ব্যবহার করা হয়েছে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৬৮০ অক্টা-কোর প্রসেসর। এই ৪জি প্রসেসরের সাথে র‍্যাম রয়েছে ৬জিবি ও স্টোরেজ রয়েছে ১২৮জিবি।

এছাড়াও vivo y22s ফোনটিতে ডেডিকেটেড মেমোরি কার্ড স্লট ব্যবহার করে স্টোরেজ বাড়িয়ে নেওয়ার আরো বেশি সু্যোগও থাকছে। তবে vivo y22s ফোনে থাকা স্ন্যাপড্রাগন ৬৮০ প্রসেসর থেকে আহামরি কোনো বেশি পারফরম্যান্স আশা করাটা মনে হয় ঠিক হবেনা।

ভিভো ওয়াই২২এস এই ফোনটি দিয়ে আপনি অবশ্যই টুকটাক ছোট বা হালকা বড় মাপের যেকোনো টুকটাক গেম চালিয়ে নিতে পারবেন, তবে হাই কোয়ালিটি কোনো ভারি গেমগুলো এই ফোনটি দিয়ে খেলা যাবেনা।

vivo y22s ফোনটি রান করবে অ্যান্ড্রয়েড ১২ ভিত্তিক ফানটাচ ১২ অপারেটিং সিস্টেম দ্বারা। ভিভোর অপারেটিং সিস্টেম বেশ ক্লিন থাকায় ব্যবহারে বেশ সুন্দর এবং স্মুথ অভিজ্ঞতা পাওয়া যাবে।

এছাড়া এই ফোনটিতে ইউজার ইন্টারফেসে অনেক ধরনের মজার ফিচার পাবেন যা স্মার্টফোন ব্যবহারের অভিজ্ঞতাকে অসাধারণ করে তুলবে।

ভিভো ওয়াই২২এস ফোনটির ব্যাটারি ৫০০০ মিলিএম্প রয়েছে। vivo y22s ফোনের বক্সে থাকা ১৮ওয়াট এর চার্জার দ্বারা ফোনটিকে অল্প সময়ের মধ্যে ফুল চার্জ করতে পারবেন।

আপনি যদি হেব্বি ইউজার হয়ে থাকেন তাহলে আপনার স্মার্টফোনকে দিন শেষে একটিবার চার্জ দিতে হবে, ভিভো ওয়াই২২এস ফোনটি থেকে আপনি ভালো ব্যাটারি ব্যাকআপ পাবেন।

ভিভো ওয়াই২২এস এর দাম

vivo y22s ফোনটি শুধুমাত্র ৬জিবি র‍্যাম এবং ১২৮জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টে বাংলাদেশের বাজারে পাওয়া যাবে। দেশের বাজারে ভিভো ওয়াই২২এস এর দাম রাখা হয়েছে ২১,৯৯৯টাকা।

vivo y22s এই ফোনের দামের চেয়ে আরো অন্য ব্যান্ডের ভালো ফিচারের ফোন বাজারে পেয়ে যাবেন। তবে এখন বর্তমান সময়ে মুদ্রাস্ফীতির কারণে সকল স্মার্টফোন বাজারের যে অবস্থা তা বিবেচনা করলেও এই ফোন তেমন একটা আহামরি ভাবে সুবিধা প্রদান করছেনা।

আপনার কাছে কি মনে হয়, তা আমাদের কমেন্ট বক্স এ কমেন্ট করে জানান।

আরোও পড়ুন..

Leave a Comment