সরকারি ফ্রিল্যান্সিং কোর্স ২০২২-২০২৩ আবেদন করুন সম্পূর্ণ ফ্রিতে

চাকরি বিকল্প পেশা হিসেবে হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং এখন বর্তমান সময়ে বাংলাদেশের অনেক যুবক যুবতীদের মাঝে সবচেয়ে বহুল আলোচিত পেশা হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং পেশা। ফ্রিল্যান্সিং মুক্ত পেশা যা আপনি ঘরে বসে অনলাইনের মাধ্যমে অন্য জনের কাজ করে দিয়ে টাকা আয় করা।

ফ্রীলান্সিং এর মাধ্যমে অনেকেই ঘরে বসেই লক্ষ টাকা আয় করছে শুধু মাত্র জ্ঞান ও আইটি দক্ষতা এবং ভালো মানের ইন্টারনেট কানেকশন দিয়ে দৈনিক আয় করে নিচ্ছে ডলার।

অনেকেই মাসে 100 থেকে হাজার ডলার আয় করে নিচ্ছে সম্পূর্ণ একদম বিনা খরচে প্রশিক্ষণ সরকারি ফ্রিল্যান্সিং কোর্স ২০২২ এর মাধ্যমে।

কিন্তু আপনি কোথায় শিখবেন সেই ফ্রিল্যান্সিং কোর্স? ডলার ইনকাম করার জন্য কোন কোর্সটি আপনার জন্যে সবচেয়ে ভালো হবে? আপনি যদি সরকারি ফ্রিল্যান্সিং কোর্স ২০২২ জানতে আগ্রহী হয়ে থাকেন তাহলে আজকেরে আর্টিকেল সম্পূর্ণ ভালভাবে পড়ুন।

সরকারি ফ্রিল্যান্সিং কোর্স ২০২২ কোনটি করবেন

সরকারি ফ্রীলান্সিং কোর্স প্রশিক্ষণ বা শেখার আগে কোন বিষয়টি নিয়ে আপনি সবচেয়ে বেশি দক্ষতা অর্জন করতে চান, সে বিষয়ে আপনার জেনে রাখা ভালো।

এখন বর্তমান সময়ে প্রচলিত সরকারি ফ্রিল্যান্সিং কোর্স ২০২২-২০২৩ রয়েছে SEO Marketing, Graphics Design, Email Marketing, Website Design, Word Press সহ আরো অন্যান্য সকল ধরনের দরকারি কিছু কোর্স।

যা আপনি যে কোন একটি বিষয়ে ভালোভাবে কাজ শিখে নিজেকে দক্ষ করতে পারলে শুধু তা দিয়েই আপনি কেরিয়ার গড়তে পারবেন।

তাই সবার আগে আপনাকে সরকারি ফ্রিল্যান্সিং কোর্স কোনটি করবেন সে বিষয় আগে ঠিক করুন, আপনি কোন বিষয় ভালো পারবেন তা ঠিক করুন

সরকারি ফ্রিল্যান্সিং কোর্স

এবং আপনি সে অনুযায়ী সরকারি কোর্সে ভর্তি হোন। এখন বর্তমানে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার আইসিটি খাতে ব্যাপক ভাবে বিনিয়োগ করছে তাই এখন বাংলাদেশের যুবক-যুবতীরা সরকারি ভাবে ফ্রিল্যান্সিং শেখার সুযোগ পাচ্ছে। আপনিও কাজ শিখুন এবং সবশেষে আপনি কাজে রূপান্তরিত করুন।

কোন কোর্সটি সময়োপযোগী হবে

দেখা গেছে এখন বর্তমান সময়ে ওয়েবসাইট ডিজাইন, গ্রাফিক্স ডিজাইন, এসইও মার্কেটিং সবচেয়ে বেশি কার্যকরী ও আপনার জন্য সময়োপযোগী সরকারি ফ্রিল্যান্সিং কোর্স ২০২২ সালে এসে।

সারা বিশ্বজুড়ে ফ্রিল্যান্সিং কাজ করছে কারণ এক্ষেত্রে দেখা গেছে বেশ কিছু সেক্টরে সবাই মিলে এক সাথে কাজ করা সম্ভব, এবং বিশেষ করে আপনার যদি SEO Marketing শেখা থাকে তাহলে কিছু কিছু কোডিং এবং ওয়েব সাইট সম্পর্কেও ধারণা থাকবে।

আবার যদি আপনার Graphics Design এর ভালো দক্ষতা থাকে তাহলে আপনাকে আর বসে থাকতে হবে না। এখন বর্তমান সময়ে আপনি অনলাইন মার্কেট প্লেইস ফাইভারের মত আরো অনেক সাইট গুলোতে খুব সহজেই ক্লায়েন্ট খুঁজে নিতে পারবেন। তাই আপনাকে এখন বেছে নিতে হবে এবং কোন কোর্সটি আপনার পছন্দ সে অনুযায়ী আপনি প্রশিক্ষণ শুরু করে দিন।

কোথায় করবেন সরকারি ফ্রিল্যান্সিং কোর্স ২০২২-২০২৩ এ

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার অনলাইন আইটিতে দিচ্ছে ব্যাপক বিনিয়োগ, দেখা গেছে তার পরিপ্রেক্ষিতে ফ্রিল্যান্সিং কোর্স গুলো চালু করা হয়েছে সরকারি ভাবে আরো বেসরকারি বিভিন্ন নামে। এখন বর্তমান সময়ে অনলাইনেও শেখা যাচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং কোর্স।

যেমন, আপনার হাতে থাকা অ্যান্ড্রয়েড ফোন নিয়ে ইউটিউবে গিয়ে সার্চ করলেই দেখবেন ফ্রিল্যান্সিং শেখার অনেক ওয়েবসাইট চলে আসবে এবং সেখানে ফ্রিল্যান্সিং কোর্স শেখার অনেক গাইডলাইন পেয়ে যাবেন।

আর যদি আপনি সরকারি ফ্রীলান্সিং কোর্স শিখতে চান তাহলে, নিচে দেওয়া লিংকে ক্লিক করে ফর্ম পূরণ করে সরকারি ভাবে ফ্রিল্যান্সিং কোর্স প্রশিক্ষণ করতে পারবেন।

লার্নিং এন্ড আর্নিং সরকারি প্রজেক্ট

গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার নির্দেশনা অনুযায়ী সরকারি অর্থায়নে “লার্নিং এন্ড আর্নিং” (LEDP) প্রোগ্রামের মাধ্যমে বাংলাদেশের সকল নাগরিক এবং যেকোন জেলা থেকে অনলাইনে সরকারি ফ্রীলান্সিং কোর্সটি করা যাচ্ছে। এখানে রয়েছে,

  1. গ্রাফিক্স ডিজাইনিং
  2. ওয়েব ডিজাইন ও ডেভেলপিং
  3. ডিজিটাল মার্কেটিং।

সরকারি ফ্রিল্যান্সিং কোর্স ২০২২-২০২৩

এগুলো কোর্সে রেজিষ্ট্রেশন করতে আমাদের দেওয়া এই লিংকে প্রবেশ করুন: https://ledp.ictd.gov.bd/registration

লার্নিং এন্ড আর্নিং ভর্তি হতে যা  প্রয়োজন হবে

আপনার এন আই ডি (NID) বা আপনার জন্মনি বন্ধনের হুবহু তথ্য, আপনার পাসর্পোট সাইজের ছবি এবং আপনার png ফরমেটে ও আপনার ২ এম্বি এর ছোট সিগনেচার।

এছাড়া এই সরকারি ফ্রিল্যান্সিং কোর্সে ভর্তি হতে আপনার নূন্যতম এইচ এস সি পাস হতে হবে এবং আপনার নিজের কম্পিউটার বা ল্যাপটপ ও ইন্টারনেট সংযোগ সহ মোবাইল ফোন থাকতে হবে।

SEIP সরকারি ফ্রিল্যান্সিং কোর্স ২০২২

Skill for Employment Investment Program এই কোর্সে ভর্তি হয়ে আপনি ফ্রিতে শিখতে পারবেন ফ্রিল্যান্সিং এবং আপনি যদি অনলাইনে সার্চ করেন তাদের ওয়েবসাইট পেয়ে যাবেন।

আপনার জেলাভিত্তিক ও থানা ভিত্তিক নিকটস্থ সরকারি পলিটেকনিকে SEIP এর প্রশিক্ষণ বিষায়ক বিজ্ঞাপন অনুযায়ী প্রতিষ্ঠানে প্রয়োজনীয় সকল কাগজ পত্র জমা দিন।

SEIP এ ভর্তি হতে যা লাগবে

SEIP কোর্সে ভর্তি হতে আপনার যা লাগবে তা হল: এইচ এস সি ও এস এস সি পাশের সার্টিফিকেট এর ফটো কপি, SEIP এই কোর্সে ভর্তি হতে অবশ্যই আপনার এন আইডি ভোটার কার্ড লাগবে এবং চেয়ারম্যান বা কমিশনার কর্তৃক আয় সনদ।

আমাদের কথা,,

আপনি যে কোন কোর্সেই শিখতে যান না কেন আপনাকে অবশ্যই চেষ্টা করতে হবে তার সকল খুঁটিনাটি । কোন কাজ শিখতে হলে একটু পরিশ্রম করতে হবে কথায় আছে পরিশ্রম সৌভাগ্যের প্রসূতি!

 

Leave a Comment